আদায়ও কম, খরচও কম

Ainun Nahar    ০৩:৫২ পিএম, ২০১৯-০৬-০৩    19


আদায়ও কম, খরচও কম

চলতি ২০১৮-১৯ অর্থবছরের শুরু থেকেই জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্য অর্জন করতে পারছে না। একেকটি মাস যায় আর এনবিআর রাজস্ব আয়ের মূল লক্ষ্য থেকে ক্রমশ দূরে সরে যাচ্ছে। তাতে বাড়ছে ঘাটতি। অর্থবছরের প্রথম ৯ মাসে এনবিআরের রাজস্ব আদায়ে ঘাটতি দাঁড়িয়েছে ৫০ হাজার কোটি টাকা।

দেশের সবচেয়ে বড় রাজস্ব আদায়কারী সংস্থার এই অবস্থা দেখে অর্থমন্ত্রীর কপালে ভাঁজ পড়ার কথা। কিন্তু অর্থমন্ত্রী কপালে সেই ভাঁজ তো পড়েনি; উল্টো তিনি কিছুটা স্বস্তিতে রয়েছেন। কারণ বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচিতে (এডিপি) আশানুরূপ খরচ হচ্ছে না। অর্থবছরের ১০ মাসে এডিপির মাত্র

৫৪ শতাংশ বাস্তবায়ন হয়েছে।

প্রতিবারই বাজেটের আয়-ব্যয়ের এই চিত্র দেখা গেলেও পরিস্থিতির কোনো উন্নতি হচ্ছে না। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, রাজস্ব খাতে বড় ধরনের সংস্কার ছাড়া রাজস্ব আদায়ে বড় লক্ষ্য পূরণ করা সম্ভব নয়। আর উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়নে প্রাতিষ্ঠানিক সক্ষমতা বৃদ্ধি করতে হবে। তা না হলে অদূর ভবিষ্যতে বাজেট ঘাটতির ওপর চাপ বাড়াবে।

আয়-ব্যয়ের চিত্র

 চলতি অর্থবছরের বাজেটের আকার ৪ লাখ ৬৬ হাজার কোটি টাকা। এর মধ্যে এনবিআরকে রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্য দেওয়া হয়েছে ২ লাখ ৯৬ হাজার ২০১ কোটি টাকা। অর্থাৎ বাজেটের প্রায় ৬৫ শতাংশের জোগান দিতে হবে এনবিআরকে। বছরের শুরুতে এনবিআরকে ৪০ শতাংশ প্রবৃদ্ধি ধরে রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্য দেওয়া হয়। কিন্তু বাস্তবে গত ৯ মাসে আদায়ে প্রবৃদ্ধি হয়েছে ৭ শতাংশের কিছুটা বেশি।

এনবিআরের তথ্য অনুযায়ী, চলতি অর্থবছরের ৯ মাসে (জুলাই-মার্চ) রাজস্ব আদায় হয়েছে ১ লাখ ৫৩ হাজার ৪৭৭ কোটি টাকা। তাতে রাজস্ব আদায়ে ঘাটতি দাঁড়িয়েছে ৫০ হাজার ৩৬৭ কোটি টাকা। আদায় কম হওয়ায় এনবিআরের রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্য সংশোধন করে ২ লাখ ৮০ হাজার ৬০০ কোটি টাকা করা হয়েছে। তাতে অর্থবছরের শেষ তিন মাসে ১ লাখ ২৭ হাজার কোটি টাকা আদায় করতে হবে।

এনবিআরের তথ্যে দেখা গেছে, গত ৯ মাসে আমদানি পর্যায়ে রাজস্ব ঘাটতি ১৫ হাজার ১৫২ কোটি টাকা। এ খাতে আদায় হয়েছে ৪৬ হাজার ৯৩০ কোটি টাকা। আর স্থানীয় পর্যায়ে মূসক আদায় হয়েছে ৬০ হাজার ১১৮ কোটি টাকা। এ খাতে রাজস্ব আদায়ে ঘাটতি রয়েছে ১৮ হাজার ৫৮০ কোটি টাকা। আয়কর ও ভ্রমণ কর আদায় হয়েছে ৪৬ হাজার ৪২৮ কোটি টাকা। এ খাতে ঘাটতি হয়েছে ১৬ হাজার ৬৩৫ কোটি টাকা।

এদিকে রাজস্ব বাবদ সরকারের আয়ের বড় অংশই খরচ হয় উন্নয়ন কর্মকাণ্ডে। এ ছাড়া রাষ্ট্রের কর্মচারীদের বেতন-ভাতা, দেশি-বিদেশি ঋণের সুদাসলও পরিশোধ করতে হয়। চলতি অর্থবছরে বাজেটের প্রায় ৪০ শতাংশ উন্নয়ন প্রকল্পের জন্য বরাদ্দ রাখা হয়েছে। তাতে এডিপির আকার ছিল ১ লাখ ৮০ হাজার কোটি টাকা। পরে অবশ্য তা সাড়ে ৩ হাজার কোটি টাকা কমানো হয়।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, অর্থবছরের প্রথম ১০ মাসে (জুলাই-এপ্রিল) সংশোধিত এডিপির প্রায় ৫৫ শতাংশ খরচ হয়েছে। টাকার অঙ্কে যার পরিমাণ ৯৭ হাজার ৩০ কোটি টাকা। এবার সংশোধিত এডিপির আকার ১ লাখ ৭৬ হাজার ৬২০ কোটি টাকা। পাঁচ বছর ধরেই প্রথম ১০ মাসে এডিপি বাস্তবায়ন হার ৫০ থেকে ৫৫ শতাংশের মধ্যে সীমাবদ্ধ। কোনোবারই সংশোধিত এডিপির পুরো টাকা খরচ করা সম্ভব হয় না। তাই বছর শেষে এডিপি বাস্তবায়নের হার ৯০-৯২ শতাংশের মধ্যেই থাকে।

বাজেটের আয়-ব্যয়ের চিত্রটি পর্যালোচনা করলে দেখা যায়, সরকার প্রত্যাশা অনুযায়ী আয় করতে পারে না, আবার উন্নয়ন খাতে ব্যয়ও করতে পারে না। উভয় দিকেই সক্ষমতার অভাব আছে, আছে লক্ষ্য নির্ধারণ ও পরিকল্পনায় গলদ।

জানতে চাইলে বেসরকারি গবেষণা প্রতিষ্ঠান সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগের (সিপিডি) গবেষক তৌফিকুল ইসলাম খান প্রথম আলোকে বলেন, প্রতিবছর এনবিআরকে অতি উচ্চাভিলাষী লক্ষ্য দেওয়া হয়। যখন এই লক্ষ্য সংশোধন করা হয়, তাও বাস্তবভিত্তিক হয় না। ফলে সংশোধিত লক্ষ্যও অর্জিত হয় না। আবার প্রতিবছর সংশোধিত লক্ষ্যের ওপর ভিত্তি করে পরের বছরের এনবিআরের লক্ষ্য নির্ধারণ করা হয়। ব্যাপক কর ছাড়ের বিষয়টি লক্ষ্য নির্ধারণের ক্ষেত্রে আমলে নেওয়া হয় না। অন্যদিকে এডিপিতে ব্যয়ের ক্ষেত্রেও সঠিক পরিকল্পনার অভাব আছে। আবার প্রকল্প বাস্তবায়নের সক্ষমতার অভাবও আছে। এ অবস্থা চলতে থাকলে অদূর ভবিষ্যতে বাজেট ঘাটতির ওপর চাপ বাড়াবে।

 

সূত্র: প্রথমআলো


রিটেলেড নিউজ

কালো স্বর্ণ বৈধ করতে ব্যবসায়ীদের ভিড়

কালো স্বর্ণ বৈধ করতে ব্যবসায়ীদের ভিড়

Rokeya Begum

দেশে প্রথমবারের মতো চলছে স্বর্ণ মেলা। ভরিতে মাত্র এক হাজার টাকা কর পরিশোধ করে অপ্রদর্শিত স্বর্ণ ব... বিস্তারিত

৫ গুন্ ব্যয় বাড়ছে ডেবিট কার্ড ক্রেডিট কার্ডে

৫ গুন্ ব্যয় বাড়ছে ডেবিট কার্ড ক্রেডিট কার্ডে

Ainun Nahar

২০১৯-২০ অর্থবছরের বাজেটে কার্ডের জন্য আমদানি করা পণ্যের ওপর নতুন করে পাঁচ থেকে ছয় গুণ শুল্ক আরোপের... বিস্তারিত

রঙের বাজারে ভালো ব্যবসা করছে বার্জার পেইন্টস

রঙের বাজারে ভালো ব্যবসা করছে বার্জার পেইন্টস

Rokeya Begum

দেশের রঙের বাজারে গত বছর ভালো ব্যবসা করেছে বার্জার পেইন্টস বাংলাদেশ লিমিটেড। এ সময় কোম্পানিটির ব... বিস্তারিত

মোবাইল সিম রিমে শুল্ক বৃদ্ধি: গ্রাহকের খরচ কেমন বাড়লো?

মোবাইল সিম রিমে শুল্ক বৃদ্ধি: গ্রাহকের খরচ কেমন বাড়লো?

Ainun Nahar

কুষ্টিয়ায় থাকেন শিরিন সুলতানা। দুরে থাকা স্বজন ও পরিবারের সদস্যদের সাথে কথা বলার জন্য তার ভরসা ... বিস্তারিত

চট্টগ্রাম অর্থনৈতিক অঞ্চলের উন্নয়নের ফলে বাড়ছে দেশি-বিদেশি বিনিয়োগ

চট্টগ্রাম অর্থনৈতিক অঞ্চলের উন্নয়নের ফলে বাড়ছে দেশি-বিদেশি বিনিয়োগ

Times of Bangladesh

ইকোনমিক জোন প্রতিষ্ঠা, বন্দরের সক্ষমতা বৃদ্ধি, নতুন বন্দর নির্মাণ, গ্যাস সংকট নিরসনে এলএনজি আমদান... বিস্তারিত

অনলাইনে কেনাকাটায়ও ভ্যাটের খড়্গ

অনলাইনে কেনাকাটায়ও ভ্যাটের খড়্গ

Ainun Nahar

প্রস্তাবিত বাজেটে ফেসবুক, ইউটিউবসহ বিভিন্ন অনলাইন মাধ্যমের বিজ্ঞাপনকে ভ্যাটের আওতায় আনতে ‘সোশ... বিস্তারিত

সর্বশেষ

সেই চেনা রূপে এই বর্ষা

সেই চেনা রূপে এই বর্ষা

Rokeya Begum

ভরা আষাঢ়েও বৃষ্টি নেই। এ নিয়ে হা-হুতাশের শেষ ছিল না নগরবাসীর। তবে কি ষড়ঋতুর বাংলাদেশ থেকে হারিয়ে ... বিস্তারিত

জ্বর হলে অবহেলা না করে ডেঙ্গু পরীক্ষার আহ্বান

জ্বর হলে অবহেলা না করে ডেঙ্গু পরীক্ষার আহ্বান

Rokeya Begum

 বৃষ্টি ও আবহাওয়ার তাপমাত্রার সঙ্গে ডেঙ্গুর একটা সম্পর্ক রয়েছে মন্তব্য করে জ্বর হলেই অবহেলা না ... বিস্তারিত

চুল পড়া প্রতিরোধে রসুন

চুল পড়া প্রতিরোধে রসুন

Rokeya Begum

চুল পড়া রোধে পেঁয়াজের রস গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে সেই সঙ্গে রসুনও অনেকটা ম্যাজিকের মতো কাজ করে। ... বিস্তারিত

মেদ কমান সহজ ৫ ঘরোয়া উপায়ে |

মেদ কমান সহজ ৫ ঘরোয়া উপায়ে |

Rokeya Begum

সুন্দর মেদহীন শরীর কে না চায়? তবে এখনকার ফাস্ট ফুডের যুগে মেদহীন শরীর পাওয়া বেশিরভাগ মানুষের কাছে ... বিস্তারিত