অনলাইনে কেনাকাটায়ও ভ্যাটের খড়্গ

Ainun Nahar    ০৬:৪৮ পিএম, ২০১৯-০৬-১৫    21


অনলাইনে কেনাকাটায়ও ভ্যাটের খড়্গ

প্রস্তাবিত বাজেটে ফেসবুক, ইউটিউবসহ বিভিন্ন অনলাইন মাধ্যমের বিজ্ঞাপনকে ভ্যাটের আওতায় আনতে ‘সোশ্যাল মিডিয়া ও ভার্চুয়াল বিজনেস’-এর সংজ্ঞা দেওয়া হয়। সেখানে সাড়ে ৭ শতাংশ ভ্যাট আরোপের প্রস্তাব করা হয়েছে। কিন্তু এ সংজ্ঞায় পড়ে গেছে ই-কমার্স বা অনলাইন কেনাকাটা। ফেসবুক, গুগল ও ইউটিউবকে ধরতে গিয়ে সাড়ে ৭ শতাংশ ভ্যাটের খড়্গ পড়েছে ই-কমার্স খাতের ওপর।

চলতি ২০১৮-১৯ অর্থবছরের বাজেট প্রস্তাবে অনলাইন কেনাকাটায় ৫ শতাংশ ভ্যাট বসানোর প্রস্তাব করা হয়েছিল। এতে ই-কমার্স, ফেসবুক কমার্স বা এফ-কমার্সসহ ইন্টারনেট মাধ্যমে সব কেনাকাটায় ভ্যাট যুক্ত করার কথা বলা হয়। পরে এটি ছাপার ভুল

বলে জানিয়েছিলেন জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া। বাজেট পাসের সময় এই ভ্যাট আর রাখা হয়নি। তবে নতুন বাজেটে ই-কমার্স খাতে নতুন করে ভ্যাট বসায় দেশে এই খাতের প্রসার ব্যাহত হওয়ার আশঙ্কা করছেন উদ্যোক্তারা।

জানতে চাইলে দেশের সফটওয়্যার ও তথ্য-প্রযুক্তিনির্ভর সেবা খাতের সংগঠন বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেসের (বেসিস) সভাপতি সৈয়দ আলমাস কবীর গতকাল শুক্রবার কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘উদীয়মান ই-কমার্স খাতে অসংখ্য শিক্ষিত তরুণ নিজেদের উদ্যোক্তা হিসেবে গড়ে তুলছে। এতে প্রচুর কর্মসংস্থান যেমন হচ্ছে, তেমনি সরকার যে ডিজিটাল বাংলাদেশ বাস্তবায়ন করতে চাচ্ছে তাতে বড় ভূমিকা রাখছে ই-কমার্স খাত। অন্তত পাঁচ বছরের জন্য হলেও এই খাতের প্রসার ঘটতে দেওয়া উচিত। তা না হলে অসংখ্য তরুণ উদ্যোক্তা পথে বসবে। প্রস্তাবিত বাজেটে ভার্চুয়াল বিজনেস ক্যাটাগরিতে ফেলে এই খাতে যে সাড়ে ৭ শতাংশ ভ্যাট আরোপের প্রস্তাব করা হয়েছে তাতে ভোক্তারাও অনলাইন কেনাকাটায় নিরুৎসাহ হবে।’

ভারতের ই-কমার্সে প্রতিদিন ৫০ লাখ ডেলিভারি হয়। বাংলাদেশে হয় মাত্র ৩০-৪০ হাজার। তুলনায় এক শ ভাগের এক ভাগও নয়। এই খাতের বিকাশে ভ্যাটকে বড় অন্তরায় বলে মনে করছেন ই-জেনারেশন লিমিটেডের চেয়ারম্যান ও অন্যতম ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান বাগডুম ডটকমের নির্বাহী চেয়ারম্যান শামীম আহসান। গতকাল তিনি কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘প্রচলিত বাজারের বেশির ভাগই ভ্যাট দিচ্ছে না। সাড়ে ৭ শতাংশ ভ্যাট বসলে অনলাইনে কেউ কেনাকাটা করবে না। অনলাইন কম্পানি বন্ধ করে দিতে বাধ্য হবে অনেকে। চলতি বাজেটে কোনো ভ্যাট না থাকলেও প্রস্তাবিত বাজেটে ভার্চুয়াল বিজনেসের মধ্যে ই-কমার্সকে সংজ্ঞায়িত করে এই ভ্যাট আরোপের প্রস্তাব করা হয়েছে। আসলে ই-কমার্স ভার্চুয়াল বিজনেস নয়। এটা অন্যায় হয়েছে।’

ই-কমার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (ই-ক্যাব) কার্যনির্বাহী কমিটির সাধারণ সম্পাদক আবদুল ওয়াহেদ তমাল গতকাল কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘মানুষ এখন অনলাইনে কেনাকাটা শুরু করেছে। এ অবস্থায় ভ্যাট আরোপ ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার পথে অন্তরায় হয়ে যায়। ই-কমার্স ও এফ-কমার্সে বর্তমানে ৫০ হাজারের বেশি উদ্যোক্তা জড়িত। তাদের জীবিকাও হুমকির মুখে পড়বে। কারণ ভ্যাট বহন করার মতো আর্থিক সক্ষমতা এসব উদ্যোক্তার নেই। তাই চূড়ান্ত বাজেটে বিষয়টি বিবেচনা করে আগের অবস্থা বহাল রাখার দাবি জানাচ্ছি।’   

দেশে অনলাইনে ব্যবসার আকার এক হাজার কোটি টাকার মতো। এখন প্রায় দুই হাজার ই-কমার্স সাইট এবং ৫০ হাজার ফেসবুকভিত্তিক প্রতিষ্ঠান রয়েছে। প্রতিদিন দেশের মধ্যে ডেলিভারি হচ্ছে প্রায় ৩০ হাজার পণ্য। অনলাইনে বিক্রি হওয়া পণ্যের ৮০ শতাংশ যাচ্ছে ঢাকা, চট্টগ্রাম ও গাজীপুরে। এ খাতকে নিয়মের মধ্যে আনতে সরকার ২০১৮ সালে ‘জাতীয় ডিজিটাল কমার্স নীতিমালা’ করেছে বলে জানান তমাল।

তৃণমূলের অনেক নারী উদ্যোক্তা ই-কমার্সের মাধ্যমে তাদের হস্তাশিল্পসহ নানা পণ্য দেশে-বিদেশে বিক্রি করে স্বাবলম্বী হচ্ছে বলে জানান ই-ক্যাবের যুগ্ম সম্পাদক ও সিটি অনলাইন মার্টের সহপ্রতিষ্ঠাতা নাসিমা আক্তার নিসা। কিন্তু ই-কমার্সে সাড়ে ৭ শতাংশ ভ্যাটের নেতিবাচক প্রভাব পড়বে ভোক্তা-উদ্যোক্তা সবার ওপর। ই-কমার্স ভার্চুয়াল সার্ভিস নয়। তিনি বলেন, ‘আমরা সব সময় চেয়ে আসছি পাঁচ বছরের জন্য ভ্যাটমুক্ত রাখার। কিন্তু এই খাত বিকশিত হওয়ার আগে একে ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে ঠেলে দেওয়া ঠিক হবে না। নতুন একটি খাতকে বড় করার জন্য আমরা নারী উদ্যোক্তাদের জন্য পাঁচ বছর সময় চাই।’

শুধু ই-কমার্স নয়, এই ভ্যাট দিতে হবে ফেসবুক পেজের মাধ্যমে যারা পণ্য বিক্রি করে তাদেরও। অনলাইন কেনাকাটায় এই ক্যাটাগরি এফ-কমার্স হিসেবে পরিচিত। দেশে বর্তমানে এমন হাজার হাজার ছোট ছোট উদ্যোক্তা রয়েছে। আগে একটি আলাদা সেবা কোডে অনলাইন কেনাকাটাকে অন্তর্ভুক্ত করে ভ্যাটের আওতামুক্ত রাখা হয়েছিল। এবার সেখানে অন্য একটি সেবা ঢুকেছে। আর ফেসবুক ও ইউটিউবের বিজ্ঞাপন-ব্যবসায় করারোপে নতুন যে আলাদা খাত সংজ্ঞায়িত হলো সেখানে ই-কমার্স ঢুকে গেছে। এতে ই-কমার্সের ওপরও সাড়ে ৭ শতাংশ করের খড়্গ পড়েছে।

সূত্র: কালেরকণ্ঠ


রিটেলেড নিউজ

কালো স্বর্ণ বৈধ করতে ব্যবসায়ীদের ভিড়

কালো স্বর্ণ বৈধ করতে ব্যবসায়ীদের ভিড়

Rokeya Begum

দেশে প্রথমবারের মতো চলছে স্বর্ণ মেলা। ভরিতে মাত্র এক হাজার টাকা কর পরিশোধ করে অপ্রদর্শিত স্বর্ণ ব... বিস্তারিত

৫ গুন্ ব্যয় বাড়ছে ডেবিট কার্ড ক্রেডিট কার্ডে

৫ গুন্ ব্যয় বাড়ছে ডেবিট কার্ড ক্রেডিট কার্ডে

Ainun Nahar

২০১৯-২০ অর্থবছরের বাজেটে কার্ডের জন্য আমদানি করা পণ্যের ওপর নতুন করে পাঁচ থেকে ছয় গুণ শুল্ক আরোপের... বিস্তারিত

রঙের বাজারে ভালো ব্যবসা করছে বার্জার পেইন্টস

রঙের বাজারে ভালো ব্যবসা করছে বার্জার পেইন্টস

Rokeya Begum

দেশের রঙের বাজারে গত বছর ভালো ব্যবসা করেছে বার্জার পেইন্টস বাংলাদেশ লিমিটেড। এ সময় কোম্পানিটির ব... বিস্তারিত

মোবাইল সিম রিমে শুল্ক বৃদ্ধি: গ্রাহকের খরচ কেমন বাড়লো?

মোবাইল সিম রিমে শুল্ক বৃদ্ধি: গ্রাহকের খরচ কেমন বাড়লো?

Ainun Nahar

কুষ্টিয়ায় থাকেন শিরিন সুলতানা। দুরে থাকা স্বজন ও পরিবারের সদস্যদের সাথে কথা বলার জন্য তার ভরসা ... বিস্তারিত

চট্টগ্রাম অর্থনৈতিক অঞ্চলের উন্নয়নের ফলে বাড়ছে দেশি-বিদেশি বিনিয়োগ

চট্টগ্রাম অর্থনৈতিক অঞ্চলের উন্নয়নের ফলে বাড়ছে দেশি-বিদেশি বিনিয়োগ

Times of Bangladesh

ইকোনমিক জোন প্রতিষ্ঠা, বন্দরের সক্ষমতা বৃদ্ধি, নতুন বন্দর নির্মাণ, গ্যাস সংকট নিরসনে এলএনজি আমদান... বিস্তারিত

আদায়ও কম, খরচও কম

আদায়ও কম, খরচও কম

Ainun Nahar

চলতি ২০১৮-১৯ অর্থবছরের শুরু থেকেই জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্য অর্জন করতে পারছ... বিস্তারিত

সর্বশেষ

সেই চেনা রূপে এই বর্ষা

সেই চেনা রূপে এই বর্ষা

Rokeya Begum

ভরা আষাঢ়েও বৃষ্টি নেই। এ নিয়ে হা-হুতাশের শেষ ছিল না নগরবাসীর। তবে কি ষড়ঋতুর বাংলাদেশ থেকে হারিয়ে ... বিস্তারিত

জ্বর হলে অবহেলা না করে ডেঙ্গু পরীক্ষার আহ্বান

জ্বর হলে অবহেলা না করে ডেঙ্গু পরীক্ষার আহ্বান

Rokeya Begum

 বৃষ্টি ও আবহাওয়ার তাপমাত্রার সঙ্গে ডেঙ্গুর একটা সম্পর্ক রয়েছে মন্তব্য করে জ্বর হলেই অবহেলা না ... বিস্তারিত

চুল পড়া প্রতিরোধে রসুন

চুল পড়া প্রতিরোধে রসুন

Rokeya Begum

চুল পড়া রোধে পেঁয়াজের রস গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে সেই সঙ্গে রসুনও অনেকটা ম্যাজিকের মতো কাজ করে। ... বিস্তারিত

মেদ কমান সহজ ৫ ঘরোয়া উপায়ে |

মেদ কমান সহজ ৫ ঘরোয়া উপায়ে |

Rokeya Begum

সুন্দর মেদহীন শরীর কে না চায়? তবে এখনকার ফাস্ট ফুডের যুগে মেদহীন শরীর পাওয়া বেশিরভাগ মানুষের কাছে ... বিস্তারিত